গর্ভবতী হওয়ার কতদিন পর বমি হয়?

গর্ভবতী হওয়ার কতদিন পর বমি হয়? গর্ভধারণের পর এমন প্রশ্ন প্রায় প্রত্যেক মহিলার মাথায় ঘুরতে থাকে। জেনে রাখা ভালো যে বমি হওয়া গর্ভধারণের একমাত্র লক্ষণ নয়। গর্ভাবস্থার অনেকগুলো লক্ষণ এর মধ্যে বমি হওয়া অন্যতম। গর্ভবতী হবার লক্ষণ গুলি সম্পর্কে আমাদের ওয়েবসাইট থেকে বিস্তারিত জেনে নিতে পারেন। 

Ask Question

গর্ভবতী হওয়ার কতদিন পর বমি হয়?

গর্ভধারণের চার থেকে ছয় সপ্তাহ পর থেকেই বমি শুরু হয়। এস্ট্রোজেন এবং প্রোজেস্টেরন এর মাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ায় বমির ভাব হয়ে থাকে। তবে এই সমস্যা বেশি হতে দেখা যায় সকাল বেলা। বমির মাত্রা যদি স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক বেশি হয় তবে যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। 

আরো দেখুনঃ সহবাসের কতদিন পর গর্ভবতী হয়

Honey Sponsored

গর্ভকালীন সময়ে বমি কেন হয়?

গর্ভধারণের পর শরীরের বেশিরভাগ পরিবর্তনগুলো সম্পন্ন হয়ে থাকে বিভিন্ন হরমোনের প্রভাবে। ঠিক একইভাবে বমি হবার পেছনে একটি হরমোন কাজ করে থাকে। হিউম্যান কোরিওনিক গনাডোট্রোফিন (Human Chorionic Gonadotropin -hCG) নামের এই হরমোন গর্ভকালীন সময়ে শরীরে দ্রুত বৃদ্ধি পেতে থাকে। আর এর ফলে গর্ভবতী মহিলা মাঝে মাঝেই বমি করে থাকেন। কোন মহিলার গর্ভে যদি যমজ সন্তান থাকে তবে বমির পরিমাণ বেশি হতে পারে। 

আরো পড়ুনঃ প্রেগন্যান্সির লক্ষণ কি কি?

হরমোনের প্রভাব এর পাশাপাশি এ সময় মর্নিং সিকনেস ও শারীরিক দুর্বলতা বাড়তে থাকে। অনেক সময় রক্তচাপ কমে গিয়ে মাথা ঘোরা এবং বমি ভাব চলে আসে। তাছাড়া অনেকের স্বাভাবিকের তুলনায় অতিরিক্ত বমি হয়ে থাকে যাকে বলা হয় হাইপারএমেসিস গ্র্যাভিডেরাম (Hyperemesis Gravidarum) । এক্ষেত্রে গর্ভবতী মহিলা স্বাভাবিক যে কোন খাবার খাওয়া মাত্রই সেটি বমির মাধ্যমে বের হয়ে আসে। এই অবস্থায় শরীরে পানি শূন্যতার ঝুঁকি অত্যন্ত বেড়ে যায়। সুতরাং এমন পরিস্থিতির শিকার হলে যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। 

আরো পড়ুনঃ গর্ভাবস্থায় সহবাস করা কতটা নিরাপদ?

অতিরিক্ত বমি হলে করণীয়

গর্ভকালীন সময়ে চতুর্থ সপ্তাহ থেকে বমি শুরু হয় ২০ তম সপ্তাহ পর্যন্ত চলতে পারে। প্রথম সপ্তাহে বমির ঔষধ, ভিটামিন এবং স্টেরয়েডের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা যায়। তবে নিজে নিজে কোন ফার্মেসি থেকে ওষুধ না কিনে ডাক্তারের পরামর্শমতো ঔষধ সেবন করা সবচেয়ে উত্তম। সেই সাথে প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি এবং খাবার স্যালাইন খেতে হবে যাতে করে শরীরে পানিশূন্যতা দেখা না দেয়। 

সুত্রঃ সহায় হেল্থ‌

RelatedPosts

ই ক্যাপ এর উপকারিতা ও অপকারিতা

ই ক্যাপ এর উপকারিতা ও অপকারিতা

ই ক্যাপ ক্যাপসুল মূলত ভিটামিন ই মুখে খাওয়া হয় এবং প্রয়োজনে বাহ্যিকভাবেও ব্যবহার করা হয়ে থাকে। চিকিৎসা বিজ্ঞানের তথ্য অনুযায়ী ই-ক্যাপ ক্যাপসুল এর অনেক উপকারিতা রয়েছে। ভিটামিন ই... Continue

সাদা স্রাব বন্ধ করার উপায়

মেয়েদের অতিরিক্ত সাদা স্রাব বন্ধ করার উপায়

সাদা স্রাব কী? মেয়েদের সাধারণ শারীরিক সমস্যা গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি সমস্যা হলো সাদা স্রাব বা লিউকোরিয়া। তবে এই সমস্যার সবচেয়ে বেশি দেখা যায় কিশোরী মেয়েদের ক্ষেত্রে। পিরিয়ডের... Continue

female health

নোরিক্স ১ পিল খাওয়ার কতদিন পর মাসিক হয়?

নোরিক্স ১ পিল খাওয়ার কতদিন পর মাসিক হয় - আমাদের এই প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয় অনেক সময়। জেনে রাখা ভালো যে নোরিক্স ১ একটি ইমারজেন্সি পিল যা অরক্ষিত... Continue

বাচ্চা হওয়ার পর পিল খাওয়ার নিয়ম

বাচ্চা হওয়ার পর পিল খাওয়ার নিয়ম কী

বাচ্চা হওয়ার পর পিল সেবনের নিয়ম গুলো সাধারণত অন্যান্য মহিলাদের মতই। তবে এক্ষেত্রে কিছু ব্যতিক্রম পদ্ধতি লক্ষ্য করা যায়। সাধারণত মহিলাদের সন্তান প্রসব করার ২১ দিন পর থেকেই... Continue

নিয়মিত মাসিক হওয়ার প্রাকৃতিক উপায়

নিয়মিত মাসিক হওয়ার প্রাকৃতিক উপায়

নিয়মিত মাসিক হওয়ার প্রাকৃতিক উপায়ঃ অনিয়মিত মাসিক নারীদের একটি সাধারণ সমস্যা হিসেবে বিবেচিত হয়ে থাকে। জীবনযাত্রায় পরিবর্তন, ওজন কমে যাওয়া কিংবা আরো বিভিন্ন কারণে মাসিক অনিয়মিত হতে পারে।... Continue

সহবাসের সময় যোনি শুকিয়ে যায় কেন । ভ্যাজাইনাল ড্রাইনেস

সহবাসের সময় যোনি শুকিয়ে যায় কেন । ভ্যাজাইনাল ড্রাইনেস

আপনি কি জানেন সহবাসের সময় যোনি শুকিয়ে যায় কেন? সহবাসের সময় যোনি শুকিয়ে যাওয়ার মত ঘটনার মুখোমুখি আমরা অনেকেই হয়ে থাকি। সাধারণত মহিলাদের বয়স ৪৫ বছরের উপরে হলে... Continue