ফোরপ্লে কি এবং কিভাবে করতে হয় ?

Medicine Price BD

ফোরপ্লে বলতে আসলে বোঝানো হয় সহবাসের পূর্বে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে আদর এবং ভালোবাসার মাধ্যমে ইচ্ছার সর্বোচ্চ চূড়ায় পৌঁছানোর পদ্ধতিকে। এর মাধ্যমে সহবাস হয়ে ওঠে অত্যান্ত আনন্দময় এবং মধুর। ফোরপ্লে একক কোন পদ্ধতি নয়। এমন কি এটা ব্যাক্তিভেদে এক এক রকম হতে পারে। এটি আসলে এমন কিছু টেকনিক বা কার্যকলাপের সমষ্টি যা একজনের থেকে অন্য জনের ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ আলাদা।

 

ফোরপ্লের মধ্যে পড়ে চুম্বন বা চুমু খাওয়া, যোনিতে ঘর্ষণ সৃষ্টি করা, স্তন যুগল হাত দিয়ে আদর করা, শরীরের বিশেষ অঙ্গ গুলিতে আলতোভাবে সুড়সুড়ি দেওয়ার উদ্দেশ্যে স্পর্শ করা এবং সঙ্গিনীর সবথেকে সংবেদনশীল অঙ্গ হাত বুলানো। এই সবগুলোই আসলে ফোরপ্লে নামে পরিচিত।

 

কেন ফোরপ্লে করা উচিত?

ফোরপ্লের সবচেয়ে উপকারী দিক হলো এটি সহবাসকে অত্যন্ত আনন্দঘন করে তুলে। অনেক সময় দেখা যায় যে স্বামীর ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও স্ত্রী সহবাসে সাড়া দিতে চায় না। এক্ষেত্রে বুঝতে হবে যে শুধুমাত্র যৌন সঙ্গম ই একমাত্র স্বামী-স্ত্রীর কাজ নয়। তাদের মধ্যে আদর ভালবাসা এবং আত্মিক সম্পর্কের টানা পড়া থাকলে সহবাসে কখনো সুখ তো পাওয়াই যাবেনা বরং অনেক সময় সঙ্গিনীকে আকৃষ্ট করতে ব্যর্থ হতে হবে। কিন্তু ফোরপ্লে করার মাধ্যমে স্ত্রীকে উত্তেজিত করলে তখন স্ত্রী নিজে থেকেই সহবাস করতে আগ্রহী হবে।

 

তাছাড়া সহবাসের সময় যোনির ভেতরে যদি পিচ্ছিল না হয় তবে সে ক্ষেত্রে ভেতরে আঘাত লাগতে পারে কিংবা ব্যথা হতে পারে। এক্ষেত্রে অনেকে লুব্রিকেন্ট জেল ব্যবহার করে থাকেন। বাজারের কোন লুব্রিকেন্ট জেল গুলো ক্ষতিকর এবং কোন গুলো আমাদের ব্যবহার করা উচিত সেটা জেনে নিতে পারেন এখান থেকে। তবে লুব্রিকেন্ট জেল ব্যবহার করার চেয়ে সবচেয়ে উত্তম কাজ হল ফোরপ্লে করা। এর মাধ্যমে স্ত্রী সহজে উত্তেজিত হয়ে পরে এবং যোনি রস দ্বারা যো নি একেবারে ভিজে যায়। এতে করে সহবাস প্রত্যন্ত সুখের হয় এবং কোন ধরনের জেল ব্যবহার করার প্রয়োজন হয় না।

 

এমনকি গবেষণা থেকে দেখা গেছে যে যারা সহবাস করার পূর্বে বেশি সময় ফোরপ্লে তে দিয়ে থাকেন তারা খুব সহজে এবং দ্রুত স্ত্রীকে তৃপ্তি দান করতে পারেন। অন্যথায় যারা সরাসরি সহবাসে চলে যান তাদের ক্ষেত্রে সহবাস হয়ে পড়ে যেন এক ধরনের রোবটিক কাজকর্ম যেখানে থাকে না কোন আবেগ ইমোশন অথবা ভালোবাসা।

 

কিভাবে ফোর প্লে করবেন?

আসলে ফোরপ্লে করার পদ্ধতি একেকজনের ক্ষেত্রে একেক রকম হয়ে থাকে। তবে স্বাভাবিকভাবে সহবাসে লিপ্ত হওয়ার পূর্বে আপনার স্ত্রীকে কাছে শুইয়ে নিয়ে আদর করতে শুরু করুন। উত্তেজনাবশত দ্রুত যোনিতে লিঙ্গ প্রবেশ করাতে যাবেন না। এতে করে আপনি সমস্যায় পড়ে যাবেন। যদি সম্ভব হয় তাহলে শরীরের ন্যূনতম যতটুকু কাপড় রাখা যায় শুধু ততটুকুই রাখুন। এরপর স্ত্রীকে জড়িয়ে ধরে চুমু খান এবং তার স্তন যুগলে আদর করতে শুরু করেন। এভাবে আদর করতে করতে আপনি যোনিতে হাত দিয়ে একটু ঘষাঘষি করতে পারেন যা খুব দ্রুত আপনার স্ত্রীকে উত্তেজিত করতে সহায়তা করবে।

 

অথবা চাইলে আপনি আপনার স্ত্রীর সারা শরীরে চুমু দিতে পারেন। তবে নারীদের সবচেয়ে সংবেদনশীল অঙ্গগুলো হলো গান কান, স্তন, পেট, যৌনাঙ্গ এবং নাভি। সংবেদনশীলতার পরিমাণ ব্যক্তিভেদে ভিন্ন হতে পারে। সে ক্ষেত্রে বুদ্ধিমানের কাজ হল আপনি আপনার স্ত্রীর সাথে কথা বলে জেনে নিন যে তার কোথায় আদর করলে সবচেয়ে দ্রুত উত্তেজিত হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে স্বামী এবং স্ত্রী উভয়কে খোলা মানসিকতার পরিচয় দিতে হবে। আপনি যদি একবার আপনারে শরীর দুর্বল জায়গার কথা জেনে যান তাহলে আশা করা যায় খুব সহজেই ভালো একটা দাম্পত্য জীবন আপনারা পার করতে পারবেন।

 

আশা করি ফোরপ্লে সম্পর্কিত সকল প্রশ্ন এবং উত্তর আপনাদেরকে দিতে পেরেছি। এরপরেও কোন প্রশ্ন থাকলে আমাদের ফেসবুক গ্রুপে করতে পারেন।

 

Medicine Price BD

Related medical and medicine article

সর্দি থেকে মুক্তির ঘরোয়া উপায়

সর্দি থেকে মুক্তির ঘরোয়া উপায়

আদা এবং তুলসী পাতা কুচি কুচি করে কেটে এক গ্লাস পানিতে মিশিয়ে ফুটাতে থাকুন। পানি যখন কমতে কমতে অর্ধেক হয়ে...Continue

খাবার খাওয়ার পর পায়খানা হয় কেন

যেভাবে বুঝবেন হরমোনের সমস্যায় ভুগছেন কিনা

হরমোন মূলত আমাদের শারীরিক সকল কার্যক্রমের সাথে সম্পর্কযুক্ত। শরীরের যদি কোন একটি কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত হয় কিংবা গ্রোথ ডেভেলপমেন্ট ঠিকমতো না...Continue

খাবার খাওয়ার পর পায়খানা হয় কেন

মাথা ঘোরালে যা করবেন।

দ্রুত মাথা ঘোরা কমাতে পানি, স্যালাইন অথবা কচি ডাবের পানি পান করতে পারেন। মাথা ঘোরার সঙ্গে যদি বমি হয়ে থাকে...Continue

খাবার খাওয়ার পর পায়খানা হয় কেন

খাবার খাওয়ার পর পায়খানা হয় কেন? জেনে নিন সমাধান।

খাবার খাওয়ার পর পায়খানা হয় কেন? আপনারও কি খাবার খাওয়ার পরপরই পেটে চাপ ধরে পায়খানার ভাব চলে আসে? যদি আপনার...Continue

arrow_right_alt